নেত্রকোণায় ট্রাকে ধাক্কায় লেগে পিকাপ ভ্যানের চালকসহ নিহত-৪

বিশেষ প্রতিনিধি: নেত্রকোণায় সড়কে দাঁড়িয়ে থাকা বালুবাহী একটি ড্রাম ট্রাকে ধাক্কা লেগে একটি পিকাপ ভ্যানের চালকসহ চারজন নিহত হয়েছেন। এসময় আরও একজন আহত হন।
শুক্রবার গভীর রাতে নেত্রকোণা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের সদর উপজেলার চল্লিশা বাগড়া বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, সুনামগঞ্জের ধরমপাশা উপজেলার জিংলিগড়া গ্রামের বাসিন্দা সবুজ মিয়ার ছেলে রনি মিয়া (২০) ও জনি মিয়া (১৪), সবুজের ভাই শফিকুল ইসলামের ছেলে তোফাজ্জল মিয়া (১৪) এবং চালক নেত্রকোণার বারহাট্টার চন্দ্রপুর গ্রামের আবুচান মিয়া (২৮।) আর শফিকুলের ছেলে আনোয়ার মিয়া (১৭) আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।
এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা ও থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার রাত একটার দিকে সুনাগঞ্জের ধরমপাশা উপজেলার গাছতলা বাজার থেকে মাছ ভর্তি করে একটি পিকাপ ভ্যান গাজিপুরের কোনাবাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। পথে রাত পৌনে তিনটার দিকে নেত্রকোনা-ময়মনসিংহ সড়কের চল্লিশা বাগড়া বাজার এলাকায় পৌঁছলে পিকাপভ্যানটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ড্রাম ট্রাকের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এতে দুই মাছ ব্যবসায়ী ঘটনাস্থলেই মারা যান। চালকসহ আহত আরও দুই মাছ ব্যবসায়ী। স্থানীয়রা তাঁদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক চালক আবুচানকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে গতকাল শনিবার বিকেলে জনিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে ওই হাসপাতালের চিকিৎসক তাকেও মৃত ঘোষণা করেন।
এ ব্যাপারে নেত্রকোণা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার শাকের আহমেদ ও শ্যামগঞ্জ হাইওয়ে থানার পরিদর্শক শফিউর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘নিহত দুই মাছ ব্যবসায়ীর লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আর চালক ও অপর মাছ ব্যবসায়ীর লাশ ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। এ নিয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।’

 

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।