আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার আইন বাস্তবায়নে সারাদেশে প্রথম নেত্রকোণা জেলা

বিশেষ প্রতিনিধি: আর্ন্তজাতিক তথ্য অধিকার দিবস ২০২১ উপলক্ষে তথ্য অধিকার আইন বাস্তবায়নে উল্লেখযোগ্য অবদানের জন্য তথ্য অধিকার বিষয়ক পুরস্কার প্রদানে তথ্য কমিশন জেলা পর্যায়ে নেত্রকোণা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়কে প্রথম পুরস্কারের জন্য মনোনীত করেছে।
তথ্য কমিশনের পরিচালক ড. মো. আ. হাকিম স্বাক্ষরিত পত্রে মঙ্গলবার ঢাকাস্থ আগারগাঁও প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরে মিলনায়তনে তথ্য অধিকার আইন বাস্তবায়নে উল্লেখযোগ্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ তথ্য অধিকার বিষয়ক প্রথম পুরস্কার গ্রহনের জন্য নেত্রকোনা জেলা প্রশাসনকে ২৮ সেপ্টেম্বর বেলা ৩টায় উপস্থিত থাকার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করেছেন।
এ ব্যাপারে নেত্রকোণা জেলা প্রশাসক কাজি মো. আবদুর রহমান বলেন, অথ্য অধিকার আইন ২০০৯ বাস্তবায়ন আমাদের বর্তমান সরকারের স্বচ্ছতার জবাবদিহিতা এবং জনগনের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে একটি মাইলফলক। সেই উপার্জনকে আমরা যেন জনগনের মাঝে জনগনের কল্যানে বিস্তৃত করতে পাড়ি সেইজন্য সমগ্র প্রশাসন ্একসঙ্গে কাজ করছি। আমরা নেত্রকোণা জেলা প্রশাসন আমাদের তথ্য প্রদানের তথ্য প্রবাহ ঠিক রাখার জন্য এবং জনগনের কাছে তথ্য পৌছানোর জন্য যতগুলো মাধ্যম রয়েছে প্রত্যোকটি মাধ্যমকে আমরা সক্রিয় করেছি। আমরা তথ্য সমৃদ্ধ করেছি এবং সেই তথ্য যেন জনগনের কাছে পৌছে সেই ব্যবস্থা গ্রহন করেছি। এছাড়া আমরা তথ্য অধিকার আইনসহ তথ্য প্রদানের ক্ষেত্রে যে সকল কার্যক্রম রয়েছে সেগুলোকে যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করেছি এবং আমরা চেষ্টা করেছি যে অংশীজন রয়েছে বিশেষকরে সকল অংশীজন যেন এই তথ্য প্রদানের ক্ষেত্রে উৎসাহবোধ করে এবং তাদের নিজস্ব অফিসে সে বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহন করে। প্রশিক্ষন প্রদান করা এবং তথ্য প্রদানের ক্ষেত্রে তাদেরকে উদ্বুদ্ধ করা এ সার্বিক কার্যক্রমগুলো আমরা সম্মিলিত ভাবে করেছি এবং এটি আমরা মনে করি জেলা পর্যায়ে সারা বাংলাদেশে প্রথম হওয়াটা অবশ্যই একটি আনন্দের বিষয়। তথ্য অধিকার বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে আমরা যে অবদান জেলা প্রশাসন থেকে নেয়া হয়েছে সেই অবদানের এই স্বীকৃতি আমাদের জেলার আমাদের সকলের। আমি সেই জন্য তথ্য কমিশনকে নেত্রকোণা জেলাবাসীর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।