মদনে প্রতিবন্ধী মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে ভিক্ষুক আটক

স্টাফ রিপোর্টার : নেত্রকোণার মদনের পল্লীতে এক বুদ্ধি ও বাক-প্রতিবন্ধী তরণী (১৯) কে ধর্ষণের অভিযোগে নয়ন মিয়া (৩৫) নামক এক ভিক্ষুককে স্থানীয় জনতা আটক করেছে। ভিক্ষুক নয়ন মিয়া কিশোরগঞ্জ জেলার রায়টুটি ইউনিয়নের রাজী গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে। মদন উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নে (নিজ ফতেপুর গ্রামে) রবিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। পরে বিকালে অভিযুক্ত নয়ন মিয়াকে মদন থানার পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন ও ভুক্তভোগী তরুণীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, ওই তরুণীর ৪ বোন ১ ভাইয়ের মধ্যে ৩ জনই প্রতিবন্ধী।  রবিবার দুপুরে তরুণীর মা কাজের জন্য বাড়ির সামনে চলে যান। এ সময়
ওই বুদ্ধি ও বাক-প্রতিবন্ধী যুবতী খালি ঘরে শুয়ে ছিলেন। এসময় ভিক্ষা করতে আসা নয়ন মিয়া ওই তরুণীকে ঘরে একা পেয়ে ধর্ষণ করে। পরে যুবতীর মা ঘরে এসে এ ঘটনা দেখতে পেয়ে চিৎকার শুরু করে। এসময় স্থানীয় লোকজন এসে ভিক্ষুক নয়ন মিয়া কে আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।
ধর্ষিতা যুবতীর মা বলেন, ঘরে এসে দেখি আমার প্রতিবন্ধী মেয়েটিকে একা পেয়ে ধর্ষণ করছেন ভিক্ষুক নয়ন মিয়া। আমার চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এসে তাকে আটক রেখে থানায় খবর দেয়। আমার মেয়েটির রক্তকরণ হচ্ছে। আমি এর ন্যায় বিচার চাই।
অভিযুক্ত ভিক্ষুক নয়ন মিয়া বলেন, ‘আমি তাদের বাড়িতে ভিক্ষা করতে এসেছিলাম। তবে ধর্ষণের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন তিনি।
মদন থানার এস আই আশরাউল ইসলাম বলেন, আমি ঘটনাস্থলে আছি। ভিক্ষুককে আটক করা হয়েছে। উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনুসারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।