বারহাট্টায় পুকুরে বিষ প্রয়োগের অভিযোগ !

বিশেষ প্রতিনিধি: নেত্রকোণার বারহাট্টা উপজেলার একটি পুকুরে বিষপ্রয়োগ করে মাছ নিধনের অভিযোগ ওঠেছে। এতে করে ওই পুকুরটির মালিক তারেক হাসানের প্রায় সাত লাখ টাকার মতো ক্ষতি সাধন করা হয়েছে।
ঘটনাটি কর্ণপুর গ্রামে গত শুক্রবার রাত একটার থেকে সাড়ে চারটার মধ্যে যে কোন এক সময় ঘটেছে বলে পুকুরের মালিকের ধারণা।
এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার ভোর পাঁচটার দিকে ওই পুকুরে থাকা রুই ও কার্প জাতীয় বিভিন্ন প্রজাতির সমস্ত মাছ মরে ভেসে ওঠে। স্থানীয়রা বিষয়টি দেখে পুকুরের মালিক তারেক হাসানকে খবর দেয়। পরে তিনি লোকজন নিয়ে জাল দিয়ে মরা এসব মাছ পাড়ে তুলেন। কিছুক্ষণ পর নষ্ট মাছগুলো পাশে থাকা কংস নদে ফেলে দেওয়া হয়।
পুকুরটি মালিক তারেক হাসান জানান, এক একর জায়গায় ওই পুকুরটিতে ধার দেনা করে সাড়ে তিন লাখ টাকার মতো তিনি বিনিয়োগ করেছিলেন। এসব মাছের বর্তমান বাজার মূল্য প্রায় সাত লাখ টাকার ওপরে। দুর্বৃত্তরা বিষপ্রয়োগ করে মাছগুলো নষ্ট করে ফেলছে। পুকুর পাড়ে বিষ সরবরাহের প্যাকেট পড়ে থাকতে দেখা যায়। তার ধারণা, পূর্ব শত্রুতা বশত গ্রামের কয়েকজন যুবক এই কাজটি ঘটাতে পারেন। বিষয়টি তিনি স্থানীয় মৎস্য কাযালয়সহ থানা পুলিশকে জানিয়েছেন। এ ছাড়া পরীক্ষার জন্য পানি সংগ্রহ করেছেন।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে শনিবার সন্ধ্যায় বারহাট্টা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘কর্ণপুর গ্রামে একটি পুকুরে দুর্বৃত্তরা মাছ বিষপ্রয়োগ করে মাছ নষ্ট করা সংক্রান্ত একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।