দুর্গাপুরে চায়ের দোকানে বসাকে কেন্দ্র করে হামলায় যুবক খুন,বাবা ভাই আহত

বিশেষ প্রতিনিধি: চায়ের দোকানে বসাকে কেন্দ্র করে বিরোধে প্রতিপক্ষের চুরিকাঘাতে বৃহষ্পতিবার রাতে এক যুবক খুন হয়েছে। ওই যুবকের নাম আনোয়ার হোসেন (২৫)। তিনি কলমাকান্দা উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের পশ্চিম আনন্দপুর গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জেলার দুর্গাপুর উপজেলার বড়ইউন্দ বাজরে বৃহষ্পতিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে হানিফ মিয়ার মুদির দোকানে বসাকে কেন্দ্র করে কলমাকান্দার পশ্চিম আনন্দপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেন (২৫) এর কথার কাটাকাটি ও টেলাধাক্কা হয় বড়ইউন্দ গ্রামের মরম আলীর ছেলে সোহেল মিয়ার (২২)। পরে বিষয়টি মিমাংসার জন্য ঘটনার সময় উপস্থিত স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল জব্বার ওই বাজারের স্বপন মিয়ার দোকানে নিয়া যান। সেখানে মিমাংসার সময় আবারো কথার কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে মরম আলীর ছেলে সোহেল মিয়া ও তার ভাই জুয়েল মিয়া (১৯) বাবা মরম আলী, আকবর আলীর ছেলে আমছর আলী(২৫) প্রতিপক্ষ আনোয়ার হোসেন ও তার চাচাত্ব ভাই মনির হোসেন, বাবা মকবুল হোসেনের হামলা চালিয়ে চুরকাঘাত করে। এরপর ওই তিন জন গুরুত্বর আহত হলে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে দুর্গাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক বৃহষ্পতিবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে আনোয়ার হোসেনকে মৃত ঘোষণা করে। গুরুত্বর আহত অপর দুইজনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
দুর্গাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহা নূর এ আলম বলেন, নিহত আনোয়ারের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ফারুক মিয়া নামের একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।