পূর্বধলায় চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে হাসপাতালে ভাংচুর

স্টাফ রির্পোটার: চিকিৎসায় অবহেলার এক রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে নেত্রকোণার পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে হামলা ও ভাংচুর করেছে ওই রোগীর স্বজনরা।
হাসপাতাল সূত্রে জানাযায়, শুক্রবার সকালে পূর্বধলা উপজেলার জারিয়া ইউনিয়নের দেওটুকোন গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে শাহীদ মিয়াকে (৩৮) চিকিৎসার জন্য তার স্বজনরা পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগে নিয়ে এসে কর্তব্যরত উপ-সহকারি কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার আব্দুল মালেককে চিকিৎসক ডাকার কথা বলেন। এসময় চিকিৎসক আসতে কিছু দেরী হওয়ায় রোগীর স্বজনরা উত্তেজিত হয়ে উঠেন। এর কিছুক্ষণ পর চিকিৎসক এসে রোগীকে প্রাথমিক পরিক্ষা-নিরিক্ষা অসুস্থ ব্যক্তিকে মৃত ঘোষণা করলে স্বজনরা উত্তেজিত হয়ে জরুরী বিভাগের চেয়ার-টেবিলসহ অন্যান্য আসবাবপত্র ভাংচুর করে।
এবিষয়ে জানতে চাইলে নিহত ব্যক্তির ভাই সুমন মিয়া বলেন, ‘হাসপাতালে ডাক্তারের অবহেলার কারণে আমার ভাই মারা গেছে। যথা সময়ে রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে আসলেও ডাক্তার আসতে আধঘণ্টা দেরি হওয়ায় স্বজনরা ক্ষুব্ধ হয়ে এ ভাংচুর করেছে।’
এপ্রসঙ্গে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক শুকলা মৌমিতা বলেন, হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই রোগীর মৃত্যু হয়েছে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মুহাম্মদ শাহীন বলেন, কর্তব্যরত চিকিৎসক ওয়াশরুমে থাকায় আসতে কিছুটা দেরী হওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে রোগীর স্বজনরা হাসপাতালে ভাংচুর করেছে। এই বিষয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হবে।
পূর্বধলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ শিবিরুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।