সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের মুক্তির দাবিতে নেত্রকোণায় সড়ক অবরোধ

স্টাফ রির্পোটার: প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও নির্যাতনের বিচারের দাবিতে এবং তার বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যার করে নিঃশর্ত মুক্তি চেয়ে নেত্রকোণায় মানববন্ধন, বিক্ষোভ সমাবেশ ও সড়ক অবরোধ করা হয়। শনিবার দুপরে নেত্রকোণা প্রেসক্লাবের ব্যানারে এসব কর্মসূচি হয়। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শহরের মোক্তারপাড়া এলাকায় পৌরসভার সামনের সড়কে কর্মসূচিতে বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক, অনলাইন মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিক ছাড়াও বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও নাগরিক সংগঠনের নেতা-কর্মীরা অংশ নেন।
এতে বক্তারা বলেন, রোজিনা ইসলামকে প্রায় ছয় ঘণ্টা আটকে রেখে হেনস্তা করে মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে পাঠিয়ে দুর্নীতিবাজেরা এ দেশের স্বাধীন সাংবাদিকতাকে গলাচিপে ধরেছে। তবে ওই লুটেরাদের অসৎ উদ্দেশ্য সফল হবে না। আজ সাংবাদিকদের পাশে দেশের সব মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। ওই দুর্নীতিবাজদের বিচারের আওতায় আনতে হবে। রোজিনা ইসলামকে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংগঠনের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হায়দার জাহান চৌধুরী। সঞ্চালনা করেন প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সঞ্জয় সরকার। বক্তব্য দেন, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও জননেত্র পত্রিকার সম্পাদক এম মুখলেছুর রহমান খান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ম কিবরীয়া চৌধুরী হেলিম, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক একেএম আব্দুল্লাহ, কোষাধ্যক্ষ আলতাবুর রহমান, জেলা সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নাজমুশ শাহাদাত, জেলা সুজনের সভাপতি শ্যামলেন্দু পাল, আমাদের নেত্রকোণা পত্রিকার সম্পাদক মাহফুজ স্বপন, জেলা নারী নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলপনা বেগম, আবদুর রহমান ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান দিলওয়ার হোসেন খান, দৈনিক বাংলার নেত্র পত্রিকার সম্পাদক কামাল হোসাইন, জেলা টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরামের সাবেক সভাপতি ও এনটিভির নিজস্ব প্রতিবেদক ভজন দাশ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান, প্রথম আলোর প্রতিনিধি পল্লব চক্রবর্তী প্রমুখ। পরে ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে শহরের প্রধান সড়কে পাঁচ মিনিট বসে বিভিন্ন ম্লোগান দিয়ে প্রতিবাদ জানানো হয়।
জেলা সুজনের সভাপতি শ্যামলেন্দু পাল বলেন, রোজিনা ইসলামের সঙ্গে সচিবালয়ে পরিকল্পিতভাবে যে নেক্কারজনক ঘটনা ঘটানো হয়েছে তা বাংলাদেশের মত একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে কাম্য হতে পারে না। এটি বাকস্বাধীনতা ও স্বাধীন সাংবাদিকতার জন্য হুমকি।’

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।