নেত্রকোণায় গান, কবিতায় প্রাণবন্ত সাহিত্য আড্ডা 

সৌমিন খেলন : ‘ও তুই পোড়া নিশির কষ্ট দিয়া নষ্ট বানাইলি আমারে / ভালবাসার স্বপ্ন নিয়া কোথায় হারাইলি। / বছর ঘুরে বছর আসে আমার হয় না ভোর / ও তাই দিন রজনী তোর ভাবনায় কাটেনা তো ঘোর’
হৃদয় পুড়া কথাগুলো নিয়ে কোনোরকম বাদ্যযন্ত্র ছাড়াই দরদী কন্ঠে গাইছিলেন শিল্পী আর মন্ত্রমুগদ্ধের মতো শোনছিলেন যারা তারা প্রত্যেকেই কবি-সাহিত্যিক।
যদিও সহজ কথা নয় যেমনতেমন সৃষ্টি নিয়ে কবি-সাহিত্যিকদের দৃষ্টি আকর্ষণ। তবে এখানে সেই কঠিন কাজটি করতে সফল হয়েছেন, দেবাশিস চক্রবর্তী কৃষ্ণ।
ময়মনসিংহ বিভাগীয় সাহিত্য পরিষদ নেত্রকোণা জেলা শাখার মাসিক আড্ডায় নিজের সবটুকু দিয়ে গাইছিলেন কৃষ্ণ।
নেত্রকোণার মোক্তারপাড়া এলাকার বাংলার নেত্র কার্যালয়ে এ আড্ডা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি
আনোয়ার জহির লিটন ও সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক লিটন পরদেশী।
কৃষ্ণের গাওয়া গানের কথাগুলো বুনেছেন, এসময়কার জনপ্রিয় গীতিকার রিপন পরদেশী। সুর করে তাতে কন্ঠ দিয়েছেন দেবাশিস চক্রবর্তী কৃষ্ণ নিজেই। এবং সংগীতয়াজোন করেছেন অনিরুদ্ধ শুভ। কৃষ্ণের পরই দেশপ্রেম নিয়ে গেয়ে উপস্থিত সকল কবি-সাহিত্যিকদের আপাদমস্তক নাড়িয়ে দিলেন আমীর হামজা।
তিনি গাইলেন, ‘ধন্য আমার জীবনখানি, ধন্য হয়েছে / বাংলাদেশের বুকে আমার জন্ম হয়েছে।’ কবিতা পাঠ, আলোচনা আর গান এরইমধ্য দিয়ে এগিয়ে চলছিল মাসিক এই সাহিত্য আড্ডা।
কবি-সাহিত্যিকদের মধ্যে আড্ডায় অংশ নিয়ে যারা পুরো সময়টিকে প্রাণবন্ত করেছিলেন- সংগঠনের সভাপতি নেহাল হাফিজ, সম্পাদক রিপন পরদেশী, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সম্পাদক আনোয়ার জহির লিটন, দৈনিক বাংলার নেত্র পত্রিকার সম্পাদক কামাল হোসাইন, এনএনবি বাংলার কান্ট্রি এডিটর সৌমিন খেলন, কবি জালাল দেওয়ান, কবি শাম্মী খান, কবি খাদিজাতুল কোবরা, সজল কুমার সরকার, কবি মো. জহিরুল হক খান,  কবি জাকিয়া ইসলাম ও কবি রাসেল হাসান।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।