উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দিন-শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল

বিশেষ প্রতিনিধি: আগামী ২৮ ডিসেম্বর নেত্রকোণার মদন পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী সাইফুল ইসলামের পক্ষে কেন্দ্রীয় ও জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা প্রচারণা চালিয়েছেন।বুধবার দিনব্যাপী পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডে প্রচারপত্র বিলি, পথসভা, গণসংযোগ করে তারা নৌকার পক্ষে ভোট চান।
দলটির নেতৃত্ব দেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক (ময়মনসিংহ বিভাগ) শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল। এ সময় তাঁর সঙ্গে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক প্রশান্ত কুমার রায়, যুগ্ম সম্পাদক নূর খান, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক ভজন সরকার, সাংগঠনিক শামছুর রহমান ওরফে ভিপি লিটন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক অর্পিতা খানম, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি রেজাউল হাফিজ রেশিম প্রমুখ। পরে সন্ধ্যায় মদন উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে কর্মী সমাবেশে কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন।
এ সময় তিনি বলেন, নৌকা দেশের উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের প্রতীক। প্রধানমন্ত্রী যাকে নৌকা প্রতীক দিয়েছেন দলমত নির্বিশেষে তাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করতে হবে। এই মদন পৌরসভা একটি পশ্চাদপদ ও অবহেলিত পৌরসভা। এখানে জনগণের কাছে ভোট চাইতে এসে দেখেছি নাগরিক সুযোগ সুবিধা তেমন নেই। নৌকার প্রার্থীকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করলে খ শ্রেণির পৌরসভার রাস্তাঘাট, ড্রেনেজ ব্যবস্থা, সড়কবাতি, পানি সরবরাহ, বর্জব্যবস্থাপনা, পয়নিষ্কাশনসহ সেবার মান উন্নয়ন করা হবে।
মদনে নির্বাচনে মেয়র পদে এবার ছয়জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাদের মধ্যে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সাইফুল ইসলাম কেন্দ্রীয় যুবলীগের সহসম্পাদক। বিএনপির প্রার্থী এনামুল হক জেলা যুবদলের সদস্য। স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক মেয়র দেওয়ান মোদাচ্ছের হোসেন। তিনি জগ প্রতীক নিয়ে মাঠে আছেন। বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী মাশফিকুর রহমান। তিনি গত নির্বাচনে দলীয় প্রতীক ধানের শীষ পেয়ে পরাজিত হন। এবার মোবাইল ফোন প্রতীকে লড়ছেন। লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী ক্ষুদিরাম দাস। আর স্বতন্ত্র অপর প্রার্থী মো. আবদুর রউফ নারিকেল গাছ প্রতীকে প্রচারণা চালাচ্ছেন। এবার নির্বাচনটি ইভিএম পদ্ধতিতে হচ্ছে। মদনে ১২ হাজার ৮৪১ জন ভোটার রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৬ হাজার ৩২৪ জন পুরুষ ও ৬ হাজার ৫১৭ জন নারী ভোটার রয়েছেন।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।