নেত্রকোণায় হেলিকপ্টারে চড়িয়ে বিয়ের আয়োজন করে ছেলের স্বপ্ন পূরণ করলেন বাবা

বিশেষ প্রতিনিধি: স্বপ্ন পূরণ করতে প্রবাসী ছেলেকে হেলিকপ্টারে চড়িয়ে বিয়ে দিলেন বাবা। নেত্রকোণার বারহাট্টা উপজেলার সাহতা গ্রামের মোঃ আবুল মনসুর খান (রতন মিয়ার) বড় ছেলে মেহেদী হাসান খান রনি শৈশবে হেলিকপ্টার উড়তে দেখে বাবার কাছে হেলিকপ্টারে চড়ার আবদার করে। তখন বাবা বলেছিলেন, বড় হওয়ার পর তোমাকে হেলিকপ্টারে করে বিয়ে দেবো। ছেলের সেই স্বপ্নকে এবার বাস্তবে পরিণত করলেন বাবা।
ঘটনাটি ঘটেছে নেত্রকোণা জেলার বারহাট্টা উপজেলার সাহতা ইউনিয়নের সাহতা গ্রামে। স্বপ্ন পূরণ হওয়া ওই ছেলের নাম প্রকৌশলী মেহেদী হাসান খান রনি। তিনি সাইপ্রাস প্রবাসী। নববধূ প্রকৌশলী জান্নাতুল ফেরদৌস আলিফা ও বর মেহেদী হাসান খান রনি বিয়ে পারিবারিক ভাবেই সম্পন্ন হয়। নববধূ ঢাকার বেইলী রোডের ব্যবসায়ী আলমগির কবীরের বড় মেয়ে।
বরের বাবা মোঃ আবুল মনসুর খান একজন কৃষক। ছেলের স্বপ্ন পূরণ করায় খুশি তিনিও। ছেলের স্বপ্ন পূরণ করতে ৩ লাখ টাকায় হেলিকপ্টার ভাড়া নিয়ে বিয়ের আয়োজন করেন। বিষয়টিতে এলাকাবাসীও খুব খুশি।


বরের বাবা মোঃ আবুল মনসুর খান বলেন, শুক্রবার দুপুর ১২টায় হেলিকপ্টারে চড়ে বিয়ে করতে রওনা হয় তার ছেলে। ওইদিনই বাড়িতে বউভাতের আয়োজন করা হয়।
প্রকৌশলী মেহেদী হাসান খান রনি বলেন, আমার দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ছিল হেলিকপ্টারে চড়ে বিয়ে করতে যাওয়ার। সেই স্বপ্ন আজ পূরণ হলো। এজন্য তিনি তার বাবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান পল্টন সরকার বলেন, হেলিকপ্টারে চড়ে বিয়ের ঘটনা আমার এলাকায় এটিই প্রথম। আমার জানা মতে এর আগে বারহাট্টা উপজেলার সাহতা ইউনিয়নে এভাবে কারও বিয়ে করার ঘটনা ঘটেনি।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।