দুর্গাপুরে ভ্রাম্যমান আদালতে হামলা, গাড়ি ভাংচুর: চার পুলিশসহ আহত ৬

স্টাফ রির্পোটার: নেত্রকোণার দুর্গাপুরের সোমেশ^রী নদীতে অবৈধ ড্রেজার মেশিন জব্দ করার সময় বুধবার বিকেলে ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়িতে হামলা করা হয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সোমেশ^রী নদীর ১ নং বালুঘাটে সীমানা নির্ধারণ, অবৈধ ড্রেজার মেশিন জব্দ ও অবৈধভাবে উত্তোলনকৃত নুড়ি পাথর জব্দ করার সময় ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট নারায়ণ চন্দ্র বর্মণের গাড়িতে অতর্কিতভাবে শতশত শ্রমিক ইটপাটকেল ছুড়ে হামলা করেছে। এসময় আদালতের কাজে নিয়োজিত চার পুলিশ সদস্য ও দুই উপসহকারী ভূমিকর্মকর্তা আহত হয়। হামলার একপর্যায়ে দুর্গাপুর থানার সাব-ইন্সপেক্টর রুকন উদ্দিন (৪০), কনস্টেবল খলিলুর রহমান (৫৫), কনস্টেবল রুবেল মিয়া (৩০), ভুমি অফিস কর্মচারী নজরুল ইসলাম (৪৫), এরশাদুল ইসলাম (৩২) ও ঘাট শ্রমিক রফিক ৩৫) গুরুতর আহত হয়ে দুর্গাপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ভাংটুর করা হয়েছে ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়ি।
ভ্রাম্যমান আদালতের উপর হামলার খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারজানা খানম, এএসপি মাহমুদা শারমিন নেলী, নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নারায়ণ চন্দ্র বর্ম্মন, ওসি শাহনুর এ আলম সহ টাস্কফোর্সের সদস্যগন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রায় ৫০টি অবৈধ বাংলা ড্রেজার ধ্বংস করেন।
সোমেশ^রী নদীর ১ নং বালুঘাটের ইজারাদারের তদারকির দায়িত্বে থাকা ফারুক আহমেদের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় এবিষয়ে কথা বলা সম্ভব হয়নি।
নেত্রকোণার জেলা প্রশাসক কাজি আবদুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আহতদের দুর্গাপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সরকারী কাজে বাধা ও হামলার অভিযোগে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সেইসাথে পরবর্তি নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বালু ঘাটের সকল কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।

 

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।