পূর্বধলার ধলামূলগাঁও ইউনিয়নের উপনির্বাচনে দুই প্রার্থীর সমর্থকের সংঘর্ষে আহত ৫

স্টাফ রির্পোটার: নেত্রকোণার পূর্বধলার ধলামূলগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনের দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে বিকেল সোয়া তিনটার দিকে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে দুই পক্ষের অন্তত পাঁচ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত একজনকে পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং বাকী চারজনকে জারিয়া উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
পুলিশ স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনে ভোট গ্রহণের সময় বেলা সোয়া তিনটার দিকে পূর্বধলা উপজেলার দেবকান্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুল হালিম খান (নৌকা) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী তারা মিয়া মেম্বার (আনারস) উপস্থিত ছিলেন।
আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুল হালিম খান বলেন, তারা মিয়ার কর্মী সমর্থকরা জাল ভোট দিতে আসলে নৌকার সমর্থকরা তখন বাধা দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে নৌকার সমর্থকদের ওপর তারা ধাওয়া করে। এ সময় নৌকার সমর্থকরাও পাল্টা ধাওয়া দিলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এসময় নৌকার সমর্থক পলাশ খান (২৫), হারুন মিয়া ও শান্ত মিয়া আহত হয়েছেন। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, বিজিবি ও অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।
স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী তারা মিয়া মেম্বার বলেন, নৌকার সমর্থক বহিরাগতররা জাল ভোট দিতে আসলে আমার সমর্থকরা বাধা দেয় । এ সময় বাধা দিলে তারাই আমাদের পক্ষের লোকজনের উপর হামলা করে। এতে দুই জন আহত হয়েছে।
এর আগে দুপুর বারোটার দিকে দত্তকুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুই বহিরাগতকে আটক করে কিছুক্ষণ রেখে ছেড়ে দেয় আইনশৃংখলা বাহিনীর লোকজন। এ ছাড়া অন্যান্য কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।
পূর্বধলা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রির্টানিংঅফিসার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ছোটখাট বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। বড় কোনো ঘটনা ঘটেনি।
উপ নির্বাচনে ইউনিয়নের ৩৮টি গ্রামের ৯টি ভোট কেন্দ্রে মোট ২১ হাজার ৯শ’ ২৫জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১১ হাজার ৩শ’ ৫০জন ও মহিলা ভোটার ১০হাজার ৬শ’ ৫জন।
বিএনপি নির্বাচন বর্জন করলেও নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীসহ ১১জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা সবাই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সমর্থক।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।