পূর্বধলায় করোনা গুজবে এক কিশোরীর বাড়ি অবরুদ্ধ

স্টাফ রির্পোটার: নেত্রকোণার পূর্বধলা উপজেলার খলিশাউর ইউনিয়নের খলাপাড়া গ্রামে করোনা সন্দেহে শোভা আক্তার (১৬) নামে এক কিশোরির বাড়ি অবরুদ্ধ করে রেখেছে এলাকাবাসাী। শোভা আক্তার মৃত আবুচান মিয়ার মেয়ে। তার ছোট এক ভাই (প্রতিবন্ধি) ও এক বোন বাড়িতেই থাকে।
শোভা আক্তারের চাচা রূপচান মিয়া জানান, শোভা আক্তার ময়মনসিংহের নান্দাইলে এক বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করে। ১ এপ্রিল (বুধবার) সেখান থেকে গায়ে হালকা জ্বর নিয়ে সে বাড়িতে আসে। এটা প্রচার হওয়ার পর থেকেই গতরাত থেকে তাকে ঘিরে এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।
এই ঘটনায় খবে পেয়ে পূর্বধলা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম সুজনের নেতৃত্বে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একটি মেডিকেল টিম শোভা আক্তারের বাড়িতে যায়। টিমে ছিলেন ডাঃ হাবিবুর রহমান, ডাঃ কনক প্রভা নন্দী ও টেকনিশিয়ান মাহবুব আলম নাবিম।
এসময় উপস্থিত ছিলেন খলিশাউর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ইয়াকুব আলী ও সংশ্লিষ্ট ৮ নং ওয়ার্ডের মেম্বার মনজুরুল হক বাবুল।
শোভা আক্তারকে বাড়ির উঠানে নিয়ে বসিয়ে তার লক্ষণ গুলো পর্যবেক্ষণ করা হয়। পরে ডাঃ হাবিবুর রহমান জানান, তার শরীরে হালকা জ্বর রয়েছে। করোনা ভাইরাসের কোন লক্ষণ যেমন গলাব্যাথা, শ্বাসকষ্ট, সর্দি-কাশি পরিলক্ষিত হয়নি। প্রাথমিক পর্যযবেক্ষণে এটাকে সিজনাল জ্বর বলে মনে হচ্ছে।
এরপর শোভাকে প্রেসক্রিপশন লিখে নিয়মিত ঔষধ খাওয়ার পরার্মশ হয় এবং যদি আরোও কোন লক্ষণ পরিলক্ষিত হয় তবে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সাথে যোগাযোগ করতে বলা হয়। এছাড়া বাড়ির লোকজনদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার আহ্বান করা হয়।
উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম সুজন বলেন, করোনা ভাইরাস নিয়ে কোন গুজব, বিভ্রান্তিকর ও অসত্য তথ্য ছড়ানো না হয় সেদিকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান। কেউ বিধিনিষেধ অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।