নেত্রকোণা সদর সার্কেলের প্রথম নারী পুলিশ কর্মকর্তা মোরশেদা খাতুন

বিশেষ প্রতিনিধি: সদর সার্কেলে প্রথম নারী পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোরশেদা খাতুন। ত্রিশ ব্যাচের এই পুলিশ কর্মকর্তা নিয়েছেন নেত্রকোণা সদর সার্কেলের দায়িত্ব। সার্কেলটিতে নেত্রকোনার মডেল থানা ও পূর্বধলা থানা অন্তর্ভুক্ত।
মোরশেদা বৃহস্পতিবার জেলায় নতুন কর্মস্থলে যোগ দিয়ে পালন করেছেন প্রথম কর্মদিবস। যোগদানকালে তাকে জেলার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ফুল দিয়ে বরণ করেন। পদন্নোতি পাওয়া পুলিশ সুপার জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) দায়িত্বে থাকা এস.এম আশরাফুল আলম তাকে বরণ করেন।
এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান জুয়েল, আল-আমিন হোসাইন (সদর) সহ বিভিন্ন পর্যায়ের পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

কর্মদিবসের প্রথম দিনে নিজের কর্ম পরিকল্পনা বা কাজের লক্ষ্য সম্পর্কে তোলে ধরেন পুলিশ কর্মকর্তা মোরশেদা জানান, “মুজিব বর্ষের অঙ্গিকার পূরণে তিনি বদ্ধপরিকর। শুধু স্লোগানে সীমাবদ্ধ নয় কার্যত জনতার পুলিশ হতে সর্বোচ্চ চেষ্টাটুকু করবেন তিনি। সেক্ষেত্রে প্রথমত সাধারণ জনতার সাথে দূরত্ব গোছাতে চব্বিশ ঘন্টা খোলা থাকবে তার দ্বার। যখন যার প্রয়োজন কোনো বাঁধা ছাড়াই কার্যালয়ে ঢুকতে পারবেন সেবাগ্রহীতারা।”
সেবা দেয়ার লক্ষ্যে যেকোনো মুহূর্তে রেসপন্স করা হবে পরিচিত-অপরিচিত সবার ফোনকল। সার্কেলে অন্তর্ভুক্ত যেকোনো পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে নির্ভয়ে জানানো যাবে। বিশেষক্ষেত্রে অভিযোগকারীর নামপরিচয় গোপন থাকবে। এছাড়াও মাদক, জুয়া, নারী-শিশু নির্যাতন আর যেকোনো অপরাধ সম্পর্কিত তথ্য জানাতে ০১৭১৩৩৭৩৫০১ নাম্বারে কল করতে পারবে যেকেউ। তথ্যদাতার নিরাপত্তার স্বার্থে সবসময় গোপন থাকবে নাম-পরিচয়।
নেত্রকোণা যোগদানের আগে মোরশেদা ময়মনসিংহ রেঞ্জ পুলিশ এবং তারও আগে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) কর্মরত ছিলেন। জেলায় কাজ করে জনতার আস্থার প্রতীক হয়ে ডিপার্টমেন্টের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে চান মোরশেদা।
সরকারের জরুরি সেবা ৯৯৯ সম্পর্কে জনগণকে আরও স্পষ্ট ধারণা দেয়ার প্রত্যাশা তোলে ধরে মোরশেদা আরো জানান, “সরকারের জরুরি সেবা সম্পর্কে মানুষ যত স্বচ্ছ ধারণা পাবে তত উপকৃত হবে। এরই সাথে তাদেরকে বুঝাতে হবে কোন পর্যায়ে আর কোন সেবা পেতে জরুরি সেবা নাম্বারের সাহায্য নিতে হবে। এতে করে প্রকৃত সেবাগ্রহীতাররা তাৎক্ষণিক তাদের প্রয়োজনীয় সেবা পেতে সক্ষম হবেন।
করোনা নিয়ে কোনো ধরণের গুজব বা মিথ্যে তথ্য ছড়ানো থেকে সকলকে বিরত থাকার পরামর্শ দিয়ে মোরশেদা জানান, আতঙ্ক নয় সচেতন হতে হবে। রাখতে হবে সামাজিক দূরত্ব বজায় আর পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার লক্ষ্যে কিছুক্ষণ পরপর হাতমুখ সাবান দিয়ে ভালো করে ধুতে হবে। অযথা বাহিরে না গিয়ে অন্তত কয়েকটা দিন এই সময়টুকুতে ঘরে আপনজনের সাথে সময় কাটাতে পারলে করোনা মোকাবেলা বা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ সম্ভব বলেও মনে করেন নেত্রকোনা সদর সার্কেলের প্রথম এই নারী পুলিশ কর্মকর্তা।”

 

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।