পূর্বধলায় এসএসসি পরীক্ষার্থীকে অপহরণ করে ধর্ষণ: মামলা আটক-১

পূর্বধলা প্রতিনিধি: নেত্রকোণার পূর্বধলায় এক এসএসসি পরীক্ষার্থীকে (১৮) ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে এক যুবককে অভিযুক্ত করে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলাটি করেন। অভিযুক্ত যুবকের নাম শিমুল আলমগীর (২৪)। তিনি পূর্বধলার বুধি এলাকার বাসিন্দা ও পেশায় ভ্যান চালক।
স্থানীয় বাসিন্দা, পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, পূর্বধলা সদর ইউনিয়নের ওই মেয়েটি এবার উপজেলা সদরের একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে চলতি এসএসসি পরীক্ষায় একটি বিষয়ে অংশগ্রহণ করে। বখাটে শিমুল আলমগীর দীর্ঘদিন ধরে ওই মেয়েটিকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। এতে মেয়েটি রাজি না হওয়ায় তিনি তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। পরে মেয়েটি তার পরিবারকে বিষয়টি জানিয়ে দিলে শিমুল আলমগীর তার ওপর ক্ষিপ্ত হন। গত শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলা সদরের মঙ্গলবাড়িয়া এলাকা থেকে শিমুল আলমগীর তাঁর সহযোগীদের নিয়ে ওই মেয়েটিকে জোর করে ভয়-ভীতি দেখিয়ে একটি মোটর সাইকেলে করে তুলে নিয়ে যান। পরে ডেউটুকোন এলাকা থেকে তাঁর পিকআপ ভ্যানে করে রাজধানীর উত্তরা এলাকায় একটি হোটেলে ধর্ষণ করেন। পর দিন নরসিংদী শহরের একটি বাসায় নিয়ে জোর করে মেয়েটির টিপসই নিয়ে বিয়ে করেন। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে পূর্বধলা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। মামলার পর পুলিশ অভিযুক্ত শিমুলকে শ্যামগঞ্জ এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে ও মেয়েটিকে উদ্ধার করে। পরে মেয়েটি নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
পূর্বধলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. তৌহীদুর রহমান বলেন, ‘এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। মামলার পর পর অভিযুক্ত ওই যুবককে গ্রেপ্তার করে বুধবার দুপুরের দিকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।