মদনে দু-পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ আহত ২৫ গ্রেফতার ৬

মদন প্রতিনিধি: ঠেলাগাড়ি দিয়ে বোরো ধানের চারা নেয়াকে কেন্দ্র্র করে নেত্রকোণার মদন উপজেলার বনতিয়শ্রী গ্রামে শনিবার রাতে করিম ও সাইদুল গ্রুপের সংষর্ষে নারীসহ ২৫ জন আহত হয়েছে ।
সংঘর্ষে গুরুত্বর আহত নুশাদ, এরশাদ, হারেস, রোকেয়া, রতন, ওয়াসীম, সফুরা আক্তার, রোকন, হান্নান, জেলন, মোমেন, করিম ও খোকনের অবস্থা আশঙ্কাজনক থাকায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকী আহত সাইদুল, সনু মিয়া, আশাদুল, রেবেকা, সাগর, হবুল মিয়া, হান্নান, সবিকুল, তাহের, ঋতু আক্তার, হালিমা ও আঙ্গুরা বেগমকে মদন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মদন উপজেলা বনতিয়শ্রী গ্রামের মৃত আব্দুল বারেকের ছেলে সাইদুলের ঠেলাগাড়িটি তাকে না বলে একই গ্রামের রাশিদের ছেলে করিম বোরো ধানের চারা ভরে হাওরে নিয়ে যায়। এ নিয়ে দু-জনের মধ্যে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের বনতিয়শ্রী গ্রামের মাইজপাড়া মসজিদের সামনে দু’পক্ষের সংঘর্ষ বেধে যায়।
এ ব্যাপারে আহত সাইদুলের মা খালেদা আক্তার বাদী হয়ে শনিবার রাতে ১৭ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১০/১৫ জনকে আসামি করে মদন থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ঘটনায় জড়িত থাকায় নূরে আলম, বুলবুল আহম্মেদ, রুবেল, মাসুম, আনোয়ার মিয়া ও পল্লী চিকিৎসক হানিফ মিয়াকে হাসপাতাল থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার দুপুরে গ্রেফতারকৃতদেরকে নেত্রকোনা কোর্ট হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

ঘটনা সর্ম্পর্কে মদন থানার ওসি মোঃ রমিজুল হক জানান, এ ব্যাপারে জখমি এরশাদের মা খালেদা আক্তার বাদী হয়ে ১৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১০/১৫ জনকে আসামি করে ওই রাতেই একটি মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত ৬ জনকে গ্রেফতার করে রোববার নেত্রকোনা কোর্ট হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।