শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের জমি হস্তান্তর ও মতবিনিময় সভা

বিশেষ প্রতিনিধি: নেত্রকোণা জেলা প্রশাসন কর্তৃক শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষের নিকট জমির হস্তান্তর ও এ উপলক্ষে মতবিনিময় সভা সোমবার সকাল দশটায় জেলা প্রশাসন সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. রফিক উল্লাহ খান এঁর সভাপতিত্বে ও জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলামের সঞ্চালনায় জমির হস্তান্তর ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মস্তুফা জব্বার।অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নেত্রকোনা ৫ আসনের সাংসদ ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল বীরপ্রতীক, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান, পুলিশ সুপার মোঃ আকবর আলী মুন্সী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রশান্ত কুমার রায়, পৌরমেয়র নজরুল ইসলাম খান, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মতিয়র রহমান, জেলা সাবেক মুক্তিযুদ্ধা কমান্ডার নূরুল আমিন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আখতারুজ্জামান, প্রেসক্লাব সম্পাদক এম মুখলেছুর রহামান খান, দৈনিক বাংলার নেত্র পত্রিকার সম্পাদক কামাল হোসাইনসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের লোকজন।


অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. রফিক উল্লাহ খান জানান, এরমধ্যে দিয়ে শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫শত একর জায়গা ক্রয়ের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। দ্রুত এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে। প্রতিবছর পাঠ্যক্রমে কোনো না কোনো ‘নতুন বিষয়’ অন্তর্ভুক্ত হবে। এবার অন্তর্ভুক্ত হয়েছে কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং। এ বিষয়ে তিনি বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ে শুধু বেকার বানানোর জন্য গতানুগতিক লেখাপড়া করানো হবে না। এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করে যাতে চাকরি পেতে পারে এমন বিষয় নিয়েই পাঠ্যক্রম চালু করা হবে। এবার চারটি বিষয়ে ৩০ জন করে ১২০ জন ছাত্রছাত্রী ভর্তির সুযোগ পাচ্ছে।
জমির হস্তান্তর ও মতবিনিময় সভা প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মস্তুফা জব্বার বলেন, বাংলাদেশের দশটি বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার বিজ্ঞান বিষয় চালু করা হয়েছে। এরমধ্যে শেখ হাসিনা বিদ্যালয় একটি। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেট সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ফ্রি ওয়াইফাই লাইন চালু করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।
নেত্রকোণার জনগণের দাবির প্রেক্ষিতে ২০১৭ সালে নেত্রকোনায় শেখ হাসিনা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হয়। নেত্রকোনা পৌর এলাকার রাজুর বাজার কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ২০১৮ সাল থেকে বাংলা, ইংরেজি এবং অর্থনীতি বিষয়ে ৯০ জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে ক্লাস শুরু হয়। এই প্রতিষ্ঠানেই শিক্ষার্থীদের আবাসনের ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু এতে করে কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রেরও সমস্যা হচ্ছে বলে জানা গেছে।
নেত্রকোনা শহরের উত্তর-পূর্ব দিকে নেত্রকোনা-মোহনগঞ্জ সড়কের পাশে রাজুর বাজার এলাকায় ৫০০ একর জমিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো নির্মাণসহ লেক নির্মাণের জন্য স্থান নির্ধারণ করা হয়। এর মধ্যে ১২৫ একরে নির্মাণ করা হবে লেক। ৩০০ একরে শুধু বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো নির্মাণ করা হবে। নেত্রকোণার হাওর পরিবেশসহ সবুজায়ন করা হবে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।