কেন্দুয়ায় প্রতিবন্ধী কিশোরী গণধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার তিন

কেন্দুয়া প্রতিনিধি: নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলায় এবার এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরী (২০) গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ ঘটনার পরপরই থানা পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত তিন যুবককে আটক করেছে।
গণধর্ষণের এ ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার (১০ জুন) বিকালে কেন্দুয়া উপজেলার গড়াডোবা ইউনিয়নে।
ঘটনার খবর পেয়ে সোমবার বিকেলে কেন্দুয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মাহমুদুল হাসান ও কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সোমবার ওই কিশোরী একই ইউনিয়নের আউজহাটি শিবপুর গ্রামের ফুফুর বাড়ি থেকে নিজ বাড়িতে ফেরার পথে বিকাল তিনটার দিকে সাখরা গ্রামের কাছে পৌছলে চার যুবক মিলে মেয়েটিকে প্রথমে স্থানীয় একটি জঙ্গলে এবং পরে পুবাইল গ্রামের মুন্নাফ মিয়ার গোয়াল ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয়রা মেয়েটিকে উদ্ধার করে।
ঘটনার খবর পেয়ে নেত্রকোণার সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার (কেন্দুয়া সার্কেল) মাহমুদুল হাসান ও কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামানসহ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে যান।
এ সময় পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান পরিচালনা করে ধর্ষণের ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে একই ইউনিয়নের চন্দলাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে কাজল (৪০),আব্দুর রহমানের ছেলে হুমায়ূন (২৫) ও রইছ উদ্দিনের ছেলে জামরুল (২৮) নামে তিন যুবককে আটক করা হয়।
এঘটনায় সোমবার রাত নয়টার দিকে কেন্দুয়া থানার ওসি মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামানের সাথে কথা হলে তিনি এতথ্য নিশ্চিত করে জানান, ধর্ষিতা কিশোরীকে মঙ্গলবার সকালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হবে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে ।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।