নেত্রকোণায় কৃষি শুমারি উপলক্ষ্যে র‌্যালী আলোচনা

বিশেষ প্রতিনিধি: ‘কৃষি শুমারি সফল করি, সমৃদ্ধ দেশ গড়ি’ স্লোগানকে সামনে রেখে নেত্রকোনায় শোভাযাত্রা হয়েছে। পরিসংখ্যান ব্যুরোর উদ্যোগে রোববার বেলা ১১টার দিকে শহরের মোক্তাপাড়া মাঠ থেকে শোভাযাত্রাটি বের হয়ে শহরের প্রধান সড়কগুলো ঘুরে এসে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে গিয়ে শেষ হয়। পরে ওই সম্মেলন কক্ষে মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খানা গণনার মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে কৃষি শুমারির কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম, পরিসংখ্যান বিভাগের উপপরিচালক শাহাবুদ্দিন সরকার, সদর উপজেলা পরিসংখ্যান কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন, উপজেলা সহকারী পরিসংখ্যান কর্মকর্তা আলমাজ উদ্দিন, সদর উপজেলার আঞ্চলিক কর্মকর্তা রেজয়ানুল করিম, পুলক কুমার বিশ্বাস প্রমুখ।
পরিসংখ্যান বিভাগের উপ-পরিচালক শাহাবুদ্দিন সরকার কৃষি শুমারি সম্পর্কে বলেন, সম্ভাবনাময় বাংলাদেশের অর্থনৈতিক চালিকা শক্তি হচ্ছে কৃষি। জনসংখ্যা বৃদ্ধি, ক্রমহ্রাসমান কৃষি জমি, জলবায়ু পরিবর্তন, বন্যা, খরা, লবনাক্ততাসহ নানাবিদ প্রতিকুলতা সত্ত্বেও খাদ্যশস্য উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন রোল মডেল। টেকসই উন্নয়ন পরিকল্পনার মাধ্যমে কৃষি খাতকে আরো এগিয়ে নিতে সঠিক তথ্র পয়োজন। এই জন্য ৯ জুন থেকে ২০ জুন পর্যন্ত শুমারী কাজে নিয়োজিত ২১৫৮ জন গণনাকারী নেত্রকোণা জেলার প্রতিটি বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে কৃষি, মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ সম্পর্কে শুমারি পরিচালনা করবেন। শুমারিতে উঠে আসা তথ্য উপাত্ত ব্যবহার করে কৃষি খাতের সুষ্ঠু পরিকল্পনার মাধ্যমে অধিক খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধি এবং খাদ্য নিরাপত্ত নিশ্চিত করতেই সরকার এই উদ্যোগ নিয়েছে। তিনি কৃষি শুমারি সফল করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।