চারশো দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দিয়েছে নেত্রকোণা ফাউন্ডেশন

বিশেষ প্রতিনিধি: বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যয়নরত চারশো দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের চার হাজার টাকা করে বৃত্তি দিয়েছে নেত্রকোণা ফাউন্ডেশন।
বুধবার নেত্রকোণা জেলা পাবলিক হল মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক মঈনুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষাবিদ ও প্রাবন্ধিক অধ্যাপক যতীন সরকার,নেত্রকোণা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ সাদেকুল আজম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রশান্ত কুমার রায়, নেত্রকোণা পৌর মেয়র আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডাঃ তাজুল ইসলাম,সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক তফসির উদ্দিন খান, সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ফখরুজ্জামান জুয়েল, জেলা মুক্তিযুদ্ধ ইউনিটের সাবেক কমান্ডার নূরুল আমিন।
অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী ফারিয়া ঝুমাই ছুটি ও তৌহিদুল ইসলাম, ঢাবির শিক্ষার্থী নূরুল ফকির ও সাহি সাদী এবং বাকৃবি-র জেরিন আক্তার।
বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে শিক্ষাবিদ ও প্রাবন্ধিক অধ্যাপক যতীন সরকার শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, শুধুমাত্র একটি বিষয়ে অভিজ্ঞ হয়ে বাকি সব বিষয়ে অজ্ঞ থাকলে চলবে না। সব বিষয়ে জ্ঞান থাকতে হবে। তাহলেই যুগোপোযুগী হয়ে গড়ে উঠতে পারবে।


জেলা প্রশাসক মঈনুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান বলেন, “ত্রিশ বছর আগে আজকের শিক্ষার্থীদের মতো এতো সুযোগ সুবিধা ছিল না। তখন বিদ্যুত ছিল না, বিদ্যুতের পাখা ছিল না, হাতে হাতে মোবাইল ফোন ছিলনা,অনেক দূর থেকে হেঁটে হেঁটে স্কুল কলেজে যেতে হতো। আজকের পৃথিবী শিক্ষার্থীরা যে সুবিধা পাচ্ছে তাতে তাদের অবশ্যই বিশ্ব উপযোগী হয়ে গড়ে উঠতে হবে। শিক্ষার্থীদের শুধু দেশের কথা ভাবলেই চলবে না তাকে বিশ্ব নিয়ে ভাবতে হবে।” এসময় তিনি নেত্রকোণা জেলা প্রশাসনকে এধরণের একটি উদ্যোগ নেয়ার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আগামীতে আরো বেশি সংখ্যক শিক্ষার্থীদের বৃত্তির আওতায় আনতে হবে। এজন্য জেলার স্বচ্ছল ব্যক্তিদের এগিয়ে আসা উচিত বলেও তিনি জানান।
অনুষ্ঠানে জেলার চার মেধাবী শিক্ষার্থীদের চার হাজার টাকা করে বৃত্তি প্রদান করা হয়।
জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম অনুষ্ঠানের সূচনা বক্তব্যে বলেন, শিক্ষার্থীরা শুধু ভালো ছাত্র হলেও চলবে না, তাদের ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। তিনি আরো বলেন, চার শত শিক্ষার্থীকে চার হাজার করে টাকা বৃত্তি দেয়া হচ্ছে। সবার সহযোগিতা থাকলে ভবিষ্যতে এধারা অব্যাহত থাকবে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।