সভাপতি প্রধান শিক্ষকের দ্বন্দ্বে বেতন ভাতা পাচ্ছেন না শিক্ষক-কর্মচারীরা

বিশেষ প্রতিনিধি: বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বিল ভাউচারে স্বাক্ষর না দেয়ায় তিন মাস ধরে বেতন পাচ্ছেন না নেত্রকোণার কলমাকান্দা উপজেলার বরদল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-কর্মচারীরা।

অনিয়মের অভিযোগ এনে বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল হেলিমকে চুড়ান্ত বরখাস্তের সিদ্ধান্তও নিয়েছে ম্যানেজিং কমিটি।

এঘটনার প্রতিবাদে এবং অবিলম্বে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন ভাতাদি প্রদানের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে উপজেলার কলমাকান্দা-দুর্গাপুর সড়কের বরদল বাজারের সামনে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ অভিভাবকরা অংশ নেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন, বরদল উচ্চ বিদ্যালয়ের বয়োজেষ্ঠ শিক্ষক মনোরঞ্জন সাহা, মো. আব্দুল লতিফ, অমল চন্দ্র দেব, আঞ্জুমান আরা বেগম, শিক্ষার্থী-অভিভাবক মো. ইউসুফ আলী, শিক্ষার্থী তাহরিমা আনসারী মিম ও মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি কর্তৃক অনৈতিকভাবে প্রধান শিক্ষকের বরখাস্ত ও অন্যান্য শিক্ষকদের হয়রানিসহ তিন মাস যাবত বেতন বিল না দেওয়ায় আমরা সবাই ক্ষুদ্ধ ও প্রতিবাদ জানাই।

শিক্ষকরা বলেন, তিন ধরে বেতন ভাতা না পাওয়ায় আমরা মানবেতর জীবন যাপন করছি। অবিলম্বে অনৈতিক সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে বেতন বিল পরিশোধ করার জন্য আহ্বান জানান তারা। একই সাথে তারা বিষয়টির সঠিক তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান মো. আব্দুল হেলিমের সাথে কথা হলে তিনি জানান, শিক্ষা বোর্ড আমার পক্ষে সিদ্ধান্ত দেওয়ার পরও সভাপতি তিন মাস ধরে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন ভাতা উত্তোলনের বিলে স্বাক্ষর করছেন না।

এ বিষয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শাহ মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম ফিরোজের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, প্রধান শিক্ষককে নিয়ে জটিলতা রয়েছে। এর সিদ্ধান দেবে শিক্ষা বোর্ড। আমি করো বেতন আটকিয়ে রাখিনি।

 

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।